ঢাকা ১২:০৮ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ২৩ জুলাই ২০২৪, ৮ শ্রাবণ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
শিরোনামঃ
শ্যামনগরে বয়স্ক,প্রতিবন্ধী ভাতার বহি ও জটিল রোগে আক্রান্তদের মাঝে চেক বিতরণ সাতক্ষীরায় থানা ঘেরাওর চেষ্টা কোটা আন্দোলনকারীদের, পুলিশের লাঠিচার্জ স্বাধীনতা বিরোধী স্লোগানের নিন্দা জানিয়েছে সুপ্রিম কোর্ট বার শ্যামনগর কাশিমাড়ী সুপেয় পানির ট্যাংক বিতরণ বসন্তপুর নদীবন্দর পরিদর্শন করলেন বিআইডব্লিউটি ও ভুমি মন্ত্রণালয়ের কর্মকর্তারা মুক্তিযোদ্ধাদের সর্বোচ্চ সম্মান দেখাতে হবে : প্রধানমন্ত্রী শ্যামনগরে স্মাট জাতীয় পরিচয়পত্র বিতরণ কার্যক্রম উদ্বোধন নওগাঁর মন্দা বদ্দপুরে তালগাছ চারা রোপন শুভ উদ্বোধন করেন এমপি গামা তালায় দলিত জনগোষ্ঠীর আর্থ-সামাজিক উন্নয়ন শীর্ষক মতবিনিময় অনুষ্ঠিত দেবহাটায় নারীর প্রতি সহিংসতা প্রতিরোধে উঠান বৈঠক

লন্ডন-কলকাতা- লন্ডন ( London-Calcutta-London ) বাস সার্ভিস

  • Sound Of Community
  • পোস্ট করা হয়েছে : ০৫:৩৬:৩০ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ৪ এপ্রিল ২০২৪
  • ২০১ জন পড়েছেন ।

লন্ডন-কলকাতা- লন্ডন ( London-Calcutta-London ) বাস সার্ভিস……..

এটা ছিলো বিশ্বের দীর্ঘতম বাস রুট। ১৯৫৭ সাল থেকে ১৯৭৬ সাল পর্যন্ত চালু ছিলো এই রুট। আলবার্ট ট্রাভেল নামে একটা কোম্পানী এটা পরিচালনা করতো। এই রুটের মোট দুরুত্ব ছিলো প্রায় ৩২৬৬৯ কি:মি:।

কোলকাতা থেকে লন্ডন পৌছাতে সময় লাগতো প্রায় ৫০ দিন। যাত্রার সময় বাসটির রুট ছিলো ইংল্যান্ড থেকে বেলজিয়াম এবং সেখান থেকে পশ্চিম জার্মানি , অস্ট্রিয়া , যুগোস্লাভিয়া , বুলগেরিয়া , তুরস্ক , ইরান , আফগানিস্তান , পাকিস্তান এবং উত্তর পশ্চিম ভারত হয়ে নয়াদিল্লি , আগ্রা , এলাহাবাদ এবং বেনারস হয়ে কলকাতায় পৌঁছাতো ।

থাকা খাওয়াসহ বাসের টিকেটের মূল্য ছিলো ১৪৫ পাউন্ড।

এই বাসে ঘুমানোর জন্য বাঙ্কার, খাবারের জন্য ছিলো সুসজ্জিত কিচেন। যাত্রাপথে তাজমহলসহ বিভিন্ন দর্শনীয় স্থান ঘুরে দেখার জন্য বিরতি দেওয়া হতো। এছাড়া ও শপিং করার জন্য ভিয়েনা, ইস্তানবুল, কাবুল ও তেহেরানে বিরতী দেওয়া হতো।

Tag :
রিপোর্টার সম্পর্কে

Sound Of Community

জনপ্রিয় সংবাদ

শ্যামনগরে বয়স্ক,প্রতিবন্ধী ভাতার বহি ও জটিল রোগে আক্রান্তদের মাঝে চেক বিতরণ

লন্ডন-কলকাতা- লন্ডন ( London-Calcutta-London ) বাস সার্ভিস

পোস্ট করা হয়েছে : ০৫:৩৬:৩০ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ৪ এপ্রিল ২০২৪

লন্ডন-কলকাতা- লন্ডন ( London-Calcutta-London ) বাস সার্ভিস……..

এটা ছিলো বিশ্বের দীর্ঘতম বাস রুট। ১৯৫৭ সাল থেকে ১৯৭৬ সাল পর্যন্ত চালু ছিলো এই রুট। আলবার্ট ট্রাভেল নামে একটা কোম্পানী এটা পরিচালনা করতো। এই রুটের মোট দুরুত্ব ছিলো প্রায় ৩২৬৬৯ কি:মি:।

কোলকাতা থেকে লন্ডন পৌছাতে সময় লাগতো প্রায় ৫০ দিন। যাত্রার সময় বাসটির রুট ছিলো ইংল্যান্ড থেকে বেলজিয়াম এবং সেখান থেকে পশ্চিম জার্মানি , অস্ট্রিয়া , যুগোস্লাভিয়া , বুলগেরিয়া , তুরস্ক , ইরান , আফগানিস্তান , পাকিস্তান এবং উত্তর পশ্চিম ভারত হয়ে নয়াদিল্লি , আগ্রা , এলাহাবাদ এবং বেনারস হয়ে কলকাতায় পৌঁছাতো ।

থাকা খাওয়াসহ বাসের টিকেটের মূল্য ছিলো ১৪৫ পাউন্ড।

এই বাসে ঘুমানোর জন্য বাঙ্কার, খাবারের জন্য ছিলো সুসজ্জিত কিচেন। যাত্রাপথে তাজমহলসহ বিভিন্ন দর্শনীয় স্থান ঘুরে দেখার জন্য বিরতি দেওয়া হতো। এছাড়া ও শপিং করার জন্য ভিয়েনা, ইস্তানবুল, কাবুল ও তেহেরানে বিরতী দেওয়া হতো।